রাজধানীর প্রতিটি ওয়ার্ডে ‘নিরাপত্তায়’ থাকবে আ.লীগ

21

আওয়ামী লীগের নেতারা বলেছেন, বিএনপির গণঅবস্থান কর্মসূচির সঙ্গে ‘পালটাপালটি কর্মসূচি নয়, নিয়মিত কর্মসূচি’ নিয়ে জনগণের ‘নিরাপত্তায়’ দলের নেতাকর্মীরা মাঠে থাকবে। বুধবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজধানীর প্রতিটি থানা, ওয়ার্ড, ইউনিট ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে তারা সতর্ক পাহারায় থাকবে। পাশাপাশি রাজধানীর দুটি স্থানে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ কর্মসূচি পালন করবে।

আওয়ামী লীগের নেতারা আরও বলেন, বিএনপির আন্দোলন মানেই জ্বালাও-পোড়াও আর সহিংসতা। সরকারি দল হিসাবে জনগণের জানমাল রক্ষা করা তাদের দায়িত্ব। তাই আন্দোলনের নামে বিএনপি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করলে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন বলেন, আন্দোলন-সংগ্রাম যে কেউ করতে পারেন। কিন্তু কেউ জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করা হবে। গণঅবস্থানের নামে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করা হলে জনগণ কঠোর হাতে তা প্রতিহত করবে। কাউকে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করতে দেওয়া হবে না। বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারী কাউকে রাস্তায় দাঁড়াতে দেওয়া হবে না। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মাঠে সতর্ক পাহারায় থাকবে।

আরেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী বলেন, অতীতে দেখেছি বিএনপি আন্দোলনের নামে জ্বালাও-পোড়াও করে। তাদের নৈরাজ্য ও সন্ত্রাসের হাত থেকে সাধারণ মানুষ, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী ও আওয়ামী লীগ নেতা কেউ ছাড় পায়নি। কিন্তু আর বিএনপিকে এ সুযোগ দেওয়া হবে না। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপির অন্যায়ের প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ করতে আওয়ামী লীগ বদ্ধপরিকর।

জানা গেছে, দুদিন আগে বিএনপির অবস্থান কর্মসূচির দিন রাজধানীতে শান্তি সমাবেশের জন্য ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ পৃথক কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল। কিন্তু মঙ্গলবার তারা পরিবর্তিত পৃথক কর্মসূচি ঘোষণা করে। নতুন এ কর্মসূচিতে বলা হয়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে রাজধানীতে দুটি আলোচনা সভা করা হবে। মিরপুর চিড়িয়াখানা রোডে ঈদগাঁও মাঠে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা করবে ঢাকা উত্তর আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করবে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ।

এছাড়া আজ সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন ওয়ার্ড-ইউনিট ও থানার নেতাকর্মীদের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে সতর্ক অবস্থান নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পৃথক কর্মসূচি নিয়ে মাঠে থাকবে যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ, মৎস্যজীবী লীগসহ দলটির সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা।

ছাত্রলীগের অবস্থান কর্মসূচি : বেলা ১১টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত শাহবাগ চত্বরে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের মদদদাতা, দুর্নীতিবাজদের পৃষ্ঠপোষক, গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের হন্তারক, অশুভ ও অন্ধকারের শক্তি বিএনপি-জামায়াতের দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র, অগ্নিসন্ত্রাসের প্রচেষ্টা ও সংবিধানবিরোধী অপতৎপরতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে ছাত্র সমাজকে সঙ্গে নিয়ে ‘অবস্থান কর্মসূচি’ পালন করবে ছাত্রলীগ।