যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের সঙ্গে টানাপোড়েন হলে কূটনৈতিক উপায়ে ফয়সালা করব: ওবায়েদুল কাদের

23

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ঢাকার যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের সঙ্গে কোনো টানাপোড়েন হলে কূটনৈতিক উপায়ে ফয়সালা করা হবে। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আজ শনিবার বিকেলে শাহবাগের ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে আওয়ামী লীগ আয়োজিত বিজয় শোভাযাত্রা শুরুর আগে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শোনেন, আজকে আমেরিকান দূতাবাসের সঙ্গে আমাদের কোনো টানাপোড়েন হলে কূটনৈতিক উপায়ে ফয়সালা করব। আমাদের বন্ধুরাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্র, উসকানি দিচ্ছে বিএনপি। আমি যুক্তরাষ্ট্রসহ সবাইকে আশ্বস্ত করছি, কূটনীতিকদের জন্য নিরাপত্তার কোনো অভাব বাংলাদেশে নেই। সবাই নিরাপদে থাকছে।’

ঢাকায় নিয়োজিত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস গত বুধবার সকালে রাজধানীর শাহীনবাগে প্রায় এক দশক ধরে নিখোঁজ বিএনপির নেতা সাজেদুল ইসলামের বাসায় যান। সেখান থেকে বেরিয়ে আসার সময় বাসার বাইরে ‘মায়ের কান্না’ নামের একটি সংগঠনের ব্যানারে একদল লোক তাঁকে ঘিরে ধরার চেষ্টা করেন। নিরাপত্তাকর্মীদের সহায়তায় তিনি বেরিয়ে আসেন। পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নিজের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ জানান মার্কিন রাষ্ট্রদূত। যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পক্ষ থেকেও এ ঘটনা নিয়ে উদ্বেগের কথা বাংলাদেশ সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে জানানো হয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের উপপ্রধান মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেল জানিয়েছেন।

মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে সংঘটিত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিএনপি। এর মধ্য দিয়ে বিদেশে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করা হয়েছে বলে মন্তব্য করছেন দলটির নেতারা।

এ প্রসঙ্গে কারও নাম উল্লেখ না করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যদি কোনো বিষয়ে টানাপোড়েন হয়, তার বিচার চাইছেন আপনারা? বিচার চাইবে যুক্তরাষ্ট্র, তাদের সঙ্গে আমাদের কথা হবে। আপনারা কে?’

আন্দোলনে যারা হারবে, নির্বাচনেও তারা হারবে বলে মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে হবে আসল খেলা।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘খেলা হবে, প্রস্তুত হয়ে যান। আওয়ামী লীগ আন্দোলনে খেলবে, নির্বাচনেও খেলবে। খেলা হবে ভোট চুরির বিরুদ্ধে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে, লুটপাটের বিরুদ্ধে, হাওয়া ভবনের বিরুদ্ধে, খুনিদের বিরুদ্ধে।’

এ সময় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খান প্রমুখ।