মন্ত্রী-এমপিরা কত টাকা লুট করেছে, সব বেরিয়ে আসবে: গয়েশ্বর

29

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ‘এই সরকারের মন্ত্রী বা সংসদ সদস্যরা কোন প্রতিষ্ঠান থেকে কত টাকা লুট করেছে তার সবকিছুই বেরিয়ে আসবে। তখন কিন্তু শেখ হাসিনা বোরকা পরেও রাস্তায় নামতে পারবেন না।’ রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে আজ শনিবার সকালে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলের আগে তিনি এ কথা বলেন।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘এই সরকার লুটপাটের মাধ্যমে দেশকে শুন্য করেছে। আর এখন তারেক রহমানের প্রতি তাদের রাগ। কারণ তিনি দেশে না থেকেও দেশবাসীকে জাগ্রত করেছেন। তাঁর নেতৃত্বে এই গণজাগরণে সরকার এখন আতঙ্কিত। তারেক রহমানের কোনো অস্থাবর সম্পত্তি নেই। মূলত ওয়ান ইলেভেনে শেখ হাসিনা দেশে বিরাজনীতিকরণের রাজনীতি শুরু করেছিল। তারই ধারাবাহিকতায় এই মিথ্যাচার।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় আরও বলেন, ‘কাঁচের ঘরে বাস করে অন্যের ভবনে ঢিল মারা বন্ধ করুন। না হলে ভবিষ্যতে দিশা পাবেন না, কোথায় যাবেন। আজকে চাকরির ভয় দেখিয়ে গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলো নিয়ন্ত্রণ করছে। আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। এর মাধ্যমে সরকারকে পতন ঘটাতে হবে এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হবে। সবাই এই আন্দোলনে শরিক হবেন।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জুবাইদা রহমানের সম্পদ তারেকের আদেশের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি। আজ শনিবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে শুরু হয়ে মিছিলটি কাকরাইলের নাইটিঙ্গেল মোড় ঘুরে আবারও নয়াপল্টনে এসে শেষ হয়। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক নবীউল্লাহ নবীর সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরাফত আলী সপু, মহানগর দক্ষিণ বিএনপির লিটন মাহমুদ, আ ন ম সাইফুল ইসলাম, যুবদলের গোলাম মাওলা শাহিন প্রমুখ।