গাজীপুরে তালাবদ্ধ ঘরে মিলল মা-ছেলের লাশ

29

গাজীপুরের শ্রীপুরে তালাবদ্ধ ঘর থেকে মা ও ছেলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

শনিবার বিকালে শ্রীপুর পৌরসভার মাওনা চৌরাস্তা এলাকার কেওয়া পশ্চিমখণ্ড গ্রামের এসিআই গেটের পেছনে নিজ বাড়ি থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন- শ্রীপুর পৌরসভার মাওনা চৌরাস্তা এলাকার কেওয়া পশ্চিমখণ্ড গ্রামের সিরাজ মিয়ার মেয়ে রুবিনা (২২) ও তার শিশুসন্তান জিহাদ (৪)।

এ ঘটনায় রুবিনার স্বামী ঝুমন মিয়াকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। ঝুমন স্থানীয় একটি ওয়ার্কশপে কাজ করেন।তার বাড়ি মুন্সীগঞ্জে।

নিহত রুবিনার বাবা সিরাজ মিয়া বলেন, প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর আগে ঝুমন ও রুবিনার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তারা আমার দেওয়া বাড়িতে বসবাস করে আসছিল।

চারদিন আগে হঠাৎ রুবিনা ও তার ছেলেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। স্বজনরা তাদের খোঁজ করলে বাড়ির মূল ফটক ও বসতঘরে তালা দেখতে পান। অন্যত্র বেড়াতে যেতে পারে- এমন ধারণায় তারা ঘরের তালা ভাঙেননি।

সম্ভাব্য সব জায়গায় খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে বোন সেলিনা আক্তার শনিবার বিকালে রুবিনার বাড়ির মূল ফটক ও বসতঘরের তালা ভেঙে মা ও ছেলের লাশ দেখতে পান। এসময় তার ডাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে  পুলিশকে খবর দেন।

সেলিনা জানান, পারিবারিক কলহের কারণে রুবিনার স্বামী বেশ কয়েকদিন ধরে বাড়ির বাইরে থাকতো। ৫/৬ দিন আগে তার ভগিনীপতি বাড়িতে আসেন। তার ধারণা, ঝগড়ার জেরেই রুবিনা ও তার সন্তানকে হত্যা করেছে ঝুমন।

শ্রীপুর থানার এসআই আমজাদ হোসেন জানান, বসতঘর থেকে মা-ছেলের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ অর্ধগলিত অবস্থায় পাওয়া গেছে। শরীরে আঘাতের কোনো চিহৃ পাওয়া যায়নি।

তিনি জানান, রুবিনার স্বামী ঝুমন মিয়াকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।