গাইবান্ধায় গরুচোর সন্দেহে পিটিয়ে হত্যা

40

গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায় গরু চোর সন্দেহে জনতার পিটুনিতে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ভাঙামোড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ৫০ বছর বয়সী হাফিজার রহমানের বিরূদ্ধে জেলার বিভিন্ন থানায় একাধিক চুরি-ছিনতাইয়ের মামলা রয়েছে বলে সাদুল্লাপুর থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় জানিয়েছেন।

গাইবান্ধা সদর উপজেলার চকমামরোজপুর গ্রামের সলিম উদ্দিনের ছেলে হাফিজারের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে দক্ষিণ ভাঙামোড় গ্রামের নুরু মিয়ার বাড়ির গোয়াল ঘর থেকে কয়েকজন চোর তিনটি গরু বের করে। পরে বাড়ির পশ্চিম পাশের ফাঁকা জমির দিকে নিয়ে যাওয়ার সময় গ্রামবাসী টের পেয়ে তাদের ধাওয়া করে।

ধাওয়া খেয়ে গরু তিনটি ছেড়ে দিয়ে পিকআপ ভ্যান নিয়ে কয়েকজন চোর পালিয়ে গেলেও হাফিজারকে স্থানীয়রা ধরে ফেলে। পালিয়ে যাওয়ার সময় দ্রুত গতির পিকআপ ভ্যানটি পথে স্থানীয় কয়েকজনকে চাপা দেয়।

পরে গ্রামবাসী হাফিজারকে নুরু মিয়ার একটি ঘরে আটকে রেখে পুলিশ ও ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দেয়। কিন্তু এরই মধ্যে এ ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকাবাসী বেড়া ও দরজা ভেঙে হাফিজারকে টেনে হিঁচড়ে বের করে পিটুনি দেয়।

হাফিজারকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

দামোদরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, চোরের দলের কয়েকজন পিকআপ ভ্যানটি নিয়ে দ্রুত গতিতে পালিয়ে যাওয়ার সময় তিনজন পথচারীকে চাপা দেয়। আহত ওই তিনজনকে সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সাদুল্লাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক কাজী মো. আহসানুল হাসীব মবিন জানান, সকাল ৭টার দিকে হাজিফারকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে বলে ওসি প্রদীপ জানান।