আশুলিয়ায় বিয়ের ৩ মাস না যেতেই শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের আত্মহত্যা

60

শাহাদাৎ হোসেন, আশুলিয়া প্রতিনিধি :  বিয়ের তিন মাস না যেতেই শ্বশুরবাড়িতে আত্মহত্যা করেছেন হাবিবুর রহমান নামে এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

রোববার রাতে ইয়ারপুর ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুরে কাদের মাস্টারের ভাড়াটিয়া শ্বশুরের বাসায় তিনি আত্মহত্যা করেছেন। সোমবার সকালে আশুলিয়া থানা পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে।

নিহত হাবিব বাগেরহাট জেলার, মোংলা থানার, আবুল হোসেনের ছেলে হাবিবুর রহমান গত তিন মাস আগে একই জেলার মোহিব্বুল্লাহ খানের, নবম শ্রেণী পড়ুয়া মেয়ে আনিকা তাবাচ্ছুমকে বিয়ে করে।।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আশুলিয়া থানার এসআই আবজালুল হক।

শ্বশুরবাড়ির দাবি, স্ত্রী সাথে না যাওয়ায় শশুরবাড়িতেই গলায় ফাঁস দিয়ে হাবিব আত্মহত্যা করেন।
তাবাচ্ছুমের ছোট ভাই জানান, তার বোনের সাথে তিন মাস আগে হাবিবুরের বিয়ে হয়। তিনি সম্প্রতি ১২ লাখ টাকার বিট কয়েনের ব্যবসা করে লোকসানে পড়ায় দুশ্চিন্তাগ্রস্ত ছিলেন। গত রাতে তার বোনকে সাথে নিয়ে যাওয়া নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে রুমে ঢুকে দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দেন তিনি। পরে আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় ঘরের দরজা ভেঙে দেখা যায় তিনি রশিতে ঝুলে আছেন। পরে তাকে দ্রুত স্থানীয় আশুলিয়া নারী ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

আশুলিয়া থানার এসআই আবজালুল হক জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তার গলায় অর্ধাকৃতি কালো দাগ রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলেই প্রকৃত কারণ জানা যাবে।