আরও শক্তিশালী হলো বাংলাদেশি পাসপোর্ট

27

২০২২ সালের তুলনায় এ বছর শক্তিশালী হয়েছে বাংলাদেশের পাসপোর্ট। ‘হ্যানলি অ্যান্ড পার্টনার্স’-এর প্রকাশিত র‍্যাংকিং অনুযায়ী, এ বছর বাংলাদেশের অবস্থান ১০১তম। এর আগের বছর ১০৪ এ ছিল বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) বিশ্বের ১৯৯টি দেশের পাসপোর্টের সূচক প্রকাশ করে ব্রিটেনভিত্তিক এই প্রতিষ্ঠান। ১০১তম অবস্থানে বাংলাদেশের সঙ্গে রয়েছে কসোভো ও লিবিয়া। বর্তমানে বিশ্বের ৪১ দেশে ভিসা ছাড়া ভ্রমণ করতে পারেন বাংলাদেশিরা।

এদিকে, তালিকার শীর্ষে রয়েছে জাপান। গত বছরও দেশটি শীর্ষে ছিল। জাপানের নাগরিকরা ভিসা ছাড়াই বিশ্বের ১৯৩টি দেশ বা অঞ্চলে ভ্রমণ করতে পারেন। সিঙ্গাপুর এবং দক্ষিণ কোরিয়া যৌথভাবে সূচকের দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে। এই দুই দেশের পাসপোর্টধারীরা ১৯২টি দেশে ভিসা ছাড়া অথবা অন-অ্যারাইভাল ভিসায় প্রবেশ করতে পারেন।

যৌথভাবে সূচকের তৃতীয় স্থানে আছে জার্মানি এবং স্পেন। এই দুই দেশের পাসপোর্টধারীরা বিশ্বের ১৯০টি দেশে ভিসা ছাড়া ভ্রমণ করতে পারেন।

এছাড়া যৌথভাবে ফিনল্যান্ড, ইতালি ও লুক্সেমবার্গ তৃতীয় এবং অস্ট্রিয়া, ডেনমার্ক, নেদারল্যান্ডস ও সুইডেন পঞ্চম স্থানে রয়েছে।

আর ৬ষ্ঠ স্থানে আছে যৌথভাবে ফ্রান্স, আয়ারল্যান্ড, পর্তুগাল ও বৃটেন। এই চার দেশের নাগরিকরা বিশ্বের ১৮৭টি দেশে ভিসা ছাড়া অথবা অন-অ্যারাইভাল ভিসায় ভ্রমণ করতে পারেন।

হ্যানলির এই সূচকে যুক্তরাষ্ট্র, বেলজিয়াম, চেকপ্রজাতন্ত্র, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড যৌথভাবে সপ্তম স্থানে আছে। এসব দেশের পাসপোর্টধারীরা বিশ্বের ১৮৬টি দেশে ভিসা ছাড়া অথবা অন-অ্যারাইভাল ভিসায় প্রবেশ করতে পারেন।

অন্যদিকে এই তালিকায় ভারতের অবস্থান ৮৫তম এবং পাকিস্তানের অবস্থান ১০৩তম। এছাড়া দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশগুলোর মধ্যে নেপাল ১০৩তম, আফগানিস্তান ১০৯তম, মালদ্বীপ ৬১তম, ভুটান ৯০তম স্থানে রয়েছে। শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকের একেবারে তলানিতে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তান। এছাড়া ইরাক ১০৮তম, সিরিয়া ১০৭তম, পাকিস্তান ১০৬তম ও ইয়েমেন ১০৫তম স্থানে রয়েছে।