বাংলাদেশ শনিবার 20, January 2018 - ৭, মাঘ, ১৪২৪ বাংলা

মিয়ানমারের ‘আরসা’ আসলে কাদের?

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশিত ১১:৩৯ জানুয়ারী ০৯, ২০১৮

গত বছরের ২৫ আগস্ট দ্য আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) কথিত হামলাকে কেন্দ্র করে মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের স্টিমরোলার চালায় দেশটির সেনাবাহিনী। মিয়ানমার বাহিনীর হত্যা-নির্যাতন থেকে বাঁচতে পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় ৬ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা।

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফেরতে চুক্তি সইয়ের বাস্তবায়নে কাজ করছে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার। এরই ধারাবাহিকতায় প্রত্যাবাসনের মাঠ পর্যায়ের চুক্তি চূড়ান্ত করতে ১৫ জানুয়ারি নেপিডোতে দুই দেশের পররাষ্ট্রসচিবেরা আলোচনায় বসছেন। কিন্তু এমন সময়ে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সদস্যদের ওপর চোরাগোপ্তা হামলা চালিয়েছে দ্য আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (আরসা)। হামলার দুই দিন পর এর দায়ও স্বীকার করেছে গোষ্ঠীটি। আর এতেই এ প্রশ্ন উঠেছে কার স্বার্থে আরসার হামলা। আরসা আসলে কার? আরসা মিয়ানমার বাহিনীর কোনো গোপন সংগঠন কি না এমন প্রশ্নও উঠেছে।

ঢাকা ও ইয়াঙ্গুনের সাবেক ও বর্তমান কূটনীতিকেরা বলছেন, গত এক বছরের কিছুটা বেশি সময় আগে আবির্ভাবের পর থেকেই আরসা যে সব হামলা চালিয়েছে, তাতে রোহিঙ্গাদের স্বার্থ ক্ষুণœ হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আরসার হামলা কার স্বার্থে তা নিয়ে তাঁরা প্রশ্ন তুলেছেন। সর্বশেষ ওই হামলাকে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া পেছানোর অজুহাত হিসাবে দাঁড় করাতে পারে মিয়ানমার।

রাখাইনের মংডুতে আরসার সর্বশেষ হামলার খবরটি মিয়ানমারের সেনাপ্রধান তাঁর ফেসবুক পেজে প্রচার করেছেন। রাখাইনে আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থার পাশাপাশি গণমাধ্যমের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় সেনাপ্রধানের খবরের সূত্র যাচাই করা সম্ভব নয়। ফলে এখন পর্যন্ত সেনা সূত্রের ওপর নির্ভর করেই আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম খবরটি প্রচার করেছে।

হামলার দু’দিন পর আরসা টুইটারে যে বিবৃতি প্রচার করেছে, সেটা নিয়েও অনেকের সন্দেহ রয়েছে। কেননা ২৫ আগস্টের ঘটনাপ্রবাহের পর থেকে রাখাইনে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বলয় রয়েছে। সেখানে গুটিকয়েক লোকের পক্ষে সেকেলে অস্ত্র নিয়ে চোরাগোপ্তা হামলা চালিয়ে বেঁচে যাওয়া কতটা সম্ভব। তা ছাড়া পাহাড়, নদী আর সাগরে ঘেরা দুর্গম অঞ্চলে এ মুহূর্তে যে কারও চলাচল রীতিমতো অসম্ভব।

মিয়ানমারে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল (অব.) অনুপ কুমার চাকমা এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেছেন, আরসা যেভাবে তাদের কর্মকা- চালাচ্ছে তা রোহিঙ্গাদের স্বার্থের বিরুদ্ধে যাচ্ছে। চূড়ান্তভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন মিয়ানমারের সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলমানেরা। তাই আরসা কাদের হয়ে কাজ করছে সেটা খুঁজে বের করা জরুরি।

এদিকে রোববার এক টুইট বার্তায় আরসা ঘোষণা দিয়েছে মিয়ানমার সরকারের বিরুদ্ধে তারা লড়াই চালিয়ে যাবে।

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

সিপিডি একটি রাজনৈতিক দলের তাঁবেদারি নিয়ে ব্যস্ত: এইচ টি ইমাম

সিপিডি একটি রাজনৈতিক দলের তাঁবেদারি নিয়ে ব্যস্ত: এইচ টি ইমাম

গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) একটি রাজনৈতিক দলের তাঁবেদারি নিয়ে ব্যস্ত বলে মন্তব্য

সাভারে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, চালক নিহত

সাভারে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাক খাদে, চালক নিহত

সাভারে শাহ সিমেন্টের ট্রাক খাদে পড়ে সাফিউল ইসলাম নামের চালক নিহত হয়েছে। আহত হেলপারকে উদ্ধার

আশুলিয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে নিরাপরাধ যুবককে মাদক মামালায় ফাঁসানোর অভিযোগ

আশুলিয়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে নিরাপরাধ যুবককে মাদক মামালায় ফাঁসানোর অভিযোগ

আশুলিয়ায় থানা পুলিশের বিরুদ্ধে এক নিরাপরাধ যুবককে মাদক মামলায় ফাঁসানো ও হোন্ডা আটকিয়ে টাকা নেয়ার


রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের চুক্তির বিষয়ে চারটি গভীর সংশয়

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের চুক্তির বিষয়ে চারটি গভীর সংশয়

বাংলাদেশ আর মিয়ানমারের সরকার রোহিঙ্গা মুসলিমদের প্রত্যাবাসনের জন্য এক চুক্তি করেছে। বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের চুক্তির বিষয়ে গভীর সংশয়

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের চুক্তির বিষয়ে গভীর সংশয়

 বাংলাদেশ আর মিয়ানমারের সরকার রোহিঙ্গা মুসলিমদের প্রত্যাবাসনের জন্য এক চুক্তি করেছে।  বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল

আশুলিয়ায় জমি দখলের অভিযোগে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী মামলা 

আশুলিয়ায় জমি দখলের অভিযোগে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজী মামলা 

প্রকাশ্যে গুলি বর্ষণের পর আতঙ্ক সৃষ্টির করে জমি দখলের অভিযোগে যুবলীগ নেতাসহ ২৬ জনের নামের


বাংলাদেশে নির্বাচনী বছরে 'অরাজক পরিস্থিতি'র আশঙ্কা কেন?

বাংলাদেশে নির্বাচনী বছরে 'অরাজক পরিস্থিতি'র আশঙ্কা কেন?

বাংলাদেশে নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক অঙ্গন সহিংস হয়ে ওঠার ইতিহাস নতুন কিছু নয়। বিগত কয়েকটি জাতীয়

ঝড়ো মৌসুমে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ৫ লাখ রোহিঙ্গা শিশু: ইউনিসেফ

ঝড়ো মৌসুমে স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ৫ লাখ রোহিঙ্গা শিশু: ইউনিসেফ

আসন্ন ঘূর্ণিঝড় ও মৌসুমী ঋতুতে বাংলাদেশের শরণার্থী শিবিরে আশ্রয় নেওয়া প্রায় ৫ লাখ ২০ হাজারেরও

ইয়াবা আসছেই, পাচারকারী সিন্ডিকেটগুলো বহাল তবিয়তে

ইয়াবা আসছেই, পাচারকারী সিন্ডিকেটগুলো বহাল তবিয়তে

মিয়ানমার ও ভারতের বিভিন্ন স্থান দিয়ে ইয়াবা দেশে ঢুকলেও ইয়াবার প্রধান উৎস মিয়ানমার। নাফ নদী



আরো সংবাদ

কাজাখস্তানে বাসে আগুন লেগে নিহত ৫২

কাজাখস্তানে বাসে আগুন লেগে নিহত ৫২

১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৫:২৪













ব্রেকিং নিউজ






শোক বাণী

শোক বাণী

১৯ জানুয়ারী, ২০১৮ ২৩:৩৩





হিজড়া পরিচয়ে ভোটার হওয়া যাবে : ইসি

হিজড়া পরিচয়ে ভোটার হওয়া যাবে : ইসি

১৮ জানুয়ারী, ২০১৮ ১৯:৪৩